ওমিক্রন শনাক্ত করে বিপদে দক্ষিণ আফ্রিকা

131


আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন শনাক্ত করে বিপদে দক্ষিণ আফ্রিকা। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানাচ্ছে, তাদেরকে অকারণে শাস্তির মুখে ফেলা হচ্ছে।

শনিবার (২৭ নভেম্বর) দক্ষিণ আফ্রিকায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতির বরাতে এ খবর জানিয়েছে বিবিসি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, করোনার অতিসংক্রামক ভ্যারিয়েন্ট ডেল্টার চেয়েও বেশি সংক্রমণ ক্ষমতা ওমিক্রনের। বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকা এই ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তের খবর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে (ডব্লিউএইচও) জানায়। পরে বতসোয়ানা, বেলজিয়াম, হংকং, ব্রিটেন এবং ইসরাইলেও এই ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া যায়।

এরই মধ্যে বেশ কয়েকটি দেশ আফ্রিকার ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা বা সীমাবদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ব্রিটেন, আইরিশ বা যুক্তরাজ্যের বাসিন্দা নয় এমন কেউ দক্ষিণ আফ্রিকা, নামিবিয়া, জিম্বাবুয়ে, বতসোয়ানা, লেসোথো এবং এসওয়াতিনি থেকে ভ্রমণকারীরা যুক্তরাজ্যে প্রবেশ করতে পারবে না। এসব দেশের সঙ্গে সোমবার থেকে বিমান যোগাযোগ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশ এবং সুইজারল্যান্ডও সাময়িকভাবে ফ্লাইট বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এদিকে, দক্ষিণ আফ্রিকার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, নতুন ভ্যারিয়েন্টের ব্যাপারে জানার পর বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশ দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ফ্লাইট নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা তার উন্নত জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের মাধ্যমে এই ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত করেছে। তবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ যা করছে শাস্তি দেওয়ার মতো।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনার এই ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে। এর মধ্যে অনেকগুলোই দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নয়। কিন্তু দেশগুলোর প্রতিক্রিয়া কেবল দক্ষিণ আফ্রিকার ক্ষেত্রে আলাদা।

সারাবাংলা/একেএম





Source link