একাধিক শব্দ ভুলে ভরা ‘দেশসেরা প্রধান শিক্ষকের’ পুরস্কারে

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশসেরা প্রধান শিক্ষক হিসেবে কিশোরগঞ্জ এস ভি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহনাজ কবীরকে দেয়া সব সনদ, ক্রেস্ট এবং মেডেলে ভুল পাওয়া গেছে। তার হাতে এ পুরস্কার তুলে দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।
গত ২০ জুন ‘জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৯’ উপলক্ষে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর শাহনাজ কবীরকে দেশের শ্রেষ্ট প্রধান শিক্ষক হিসেবে নির্বাচিত করে। এরপর গত বুধবার (২৬ জুন) রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে এক অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন। কিন্তু পুরস্কার হিসেবে পাওয়া সনদ, ক্রেস্ট এবং মেডেল সবগুলোতেই ভুলে ভরা। এতে শাহনাজ কবীর এবং তার শুভাকাঙ্ক্ষীরা চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।
শাহনাজ কবীর বলেন, প্রথমে ভুলের বিষয়টি তার নজরে পড়েনি। পরে বাসায় ফিরে দেখেন তার তিনটি পুরস্কারেই অনেকগুলো ভুল রয়েছে। যেমন তিনি কিশোরগঞ্জ এস ভি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, কিন্তু তার সনদপত্রে ‘এস ভি’ লেখার পরিবর্তে ‘এম ভি’ লেখা রয়েছে। আবার বিদ্যালয়টি কিশোরগঞ্জের হলেও সনদে ‘ময়মনসিংহ’ লেখা হয়। তার জন্য তৈরিকৃত একমাত্র মেডেলেও বিদ্যালয়ের নামের ক্ষেত্রে ‘এস ভি’ লেখার পরিবর্তে ‘এম ভি’ লেখা হয়েছে। বালিকার জায়গায় লেখা হয় ‘বালিক’। একই ধরনের ভুল রয়েছে ক্রেস্টেও।
তিনি জানান, সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান হিসেবে পাওয়া এসব পুরস্কারের ভুল সংশোধন করতে তিনি বৃহস্পতিবার দুপুরে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে যান। কিন্তু সেখানে গিয়ে ভুলের বিষয়টি জানানোর জন্য পরিচালক, উপ-পরিচালকসহ কোন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের তিনি পাননি। ফলে ভুল ভরা পুরস্কারগুলো নিয়েই আবার ওইদিন রাতে কিশোরগঞ্জ ফিরে আসেন তিনি।
তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, জাতীয় পর্যায় থেকে দেওয়া পুরস্কারে এত ভুল মেনে নেয়া খুবই কষ্টকর। অথচ তিনি বিদ্যালয়ের নাম, ঠিকানাসহ যাবতীয় সকল তথ্য সংশ্লিষ্ট কৃর্তপক্ষকে আগেই লিখে পাঠিয়েছিলেন। শ্রেষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর তাকে যে চিঠি দেওয়া হয়েছিল, তাতেও বিদ্যালয়ের নাম-ঠিকানা সঠিক ছিল।

মতামত দিন

Post Author: newsdesk

A thousand enemies is not enough; a single enemy is. There is nothing as a ‘harmless’ enemy.