ইউএনওর ওপর হামলার দায় স্বীকার রবিউলের

0
62

রফিকুল ইসলাম ফুলাল, প্রতিনিধি দিনাজপুর :: দিনাজপুর ঘোড়াঘাট উপজেলা ইউএনও ওয়াহিদা খানমের হত্যা প্রচেষ্টা হামলার দায় স্বীকার করেছে অভিযুক্ত রবিউল ইসলাম। দ্বিতীয় দফায় ৩ দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুলক জবান বন্দীতে দায় স্বীকার করে।

গতকাল রবিবার আসামী রবিউল ইসলামকে দ্বিতীয় দফায় ৩ দিনের রিমান্ড শেষে আজ সকাল ১০টায় কড়া পুলিশী নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে আদালতে নিয়ে আসা হয়। পরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ইসমাইল হোসেনের এর আদালতে কার্যবিধি ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদান এর জন্য তদন্ত কর্মকতা আবেদন জানান। সরাসরি আসামী রবিউল ইসলামকে ম্যাজিষ্ট্রেটের খাসকামরায় নিয়ে যাওয়া হয়। জবানবন্দী প্রদানের সময় দায় স্বীকারের কথা বলেন রবিউল। জবানবন্দী শেষে রবিউলকে ডিবির সহায়তায় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

দিনাজপুর কোর্ট পরিদর্শক ইসরাইল হোসেন জানান, রবিবার সকাল ১০টায় এই চাঞ্চল্যকর মামলার গ্রেফতারকৃত আসামী ঘোড়াঘাট উপজেলা পরিষদের সাময়িক বরখাস্তে থাকা মালি রবিউল ইসলাম কে কড়া পুলিশ পাহাড়ায় আদালতে হাজির করা হয়। আসামী রবিউলকে জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ইসমাইল হোসেনের এর আিদালতে সোপর্দ করা হয়। রবিউল জবানবন্দী দিতে সম্মত হলে বিচারক তার খাসকামড়ায় জবানবন্দি গ্রহন করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকতা ডিবির ওসি ইমাম জাফর জানান, রবিউল হামলার দায় স্বীকার করেছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী সে একাই এ হামলা চালিয়েছে।

উল্লেখ্য ৩ সেম্‌টম্বর দিনাজপুর ঘোড়াঘাট উপজেলা ইউএনও ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা ওমর আলীর উপর হামলার ঘটনা ঘটে। সেই দিন রাতে ইউএনওর ভাই শেখ ফরিদউদ্দিন অজ্ঞাতনামা উল্লেখ কওে হত্যা চেষ্টা মামলা দায়ের করেন ঘোড়াঘাট থানায়। হামলার ঘটনায় ৫ জনকে আসামীকরা হয়। আসামীরা হলেন আসাদুল, নবীরুল, সান্টু, পলাশ এবং রবিউল। তদন্তকারী কর্মকতা আসাদুল, নবীরুল, সান্টু প্রত্যেককে ৭ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিঞ্জাসাবাদ শেষে কারাগাওে পাঠানো হয়। রবিউল দুই দফায় ৯ দিনের রিমান্ড নেয় ডিবি।

Print Friendly, PDF & Email

Source link