আলেম মুক্তিযোদ্ধাদের রাষ্ট্রীয় সম্মাননা দেয়ার দাবি ওলামা লীগের

0
166

মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী আলেম-ওলামা, পীর- মাশায়েখদের রাষ্ট্রীয় সম্মাননা দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগ।

মঙ্গলবার (১ ডিসেম্বর) মহান মুক্তিযুদ্ধ দিবস উপলক্ষে এক যৌথ বিবৃতিতে এ দাবি করেন সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ।

বিবৃতিতে বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগ জাতীয় সম্মেলন প্রস্তুতি আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিব মুফতী মাসুম বিল্লাহ নাফিয়ী বলেন, মুক্তিযুদ্ধে আলেম সমাজের ভূমিকা উল্লেখযোগ্য। অনেক আলেম রণাঙ্গণে স্বাধীনতার জন্য সম্মুখ যুদ্ধে অংশগ্রহণ করতে পিছপা হননি। ১৯৭১ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে অনেক আলেম পাকিস্তানী জালেম হায়েনাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র হাতে তুলে নিতে ভুল করেনি। অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় হলেও পরম সত্য যে স্বাধীনতার প্রায় ৪৯ বছর পরও তারা তাদের ত্যাগের প্রাপ্য সম্মান পায়নি।

কতিপয় স্বাধীনতা বিরোধী জামাতী ছাড়া আলেম সমাজের এক বিশাল অংশ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে সক্রিয় অবস্থান নিয়েছিল। অনেকেই মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ ভূমিকার জন্য খেতাবপ্রাপ্ত হয়েছে। জামাতীদের ধর্মব্যবসা ও স্বাধীনতাবিরোধী তাণ্ডবের কারণে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী আলেমরা বরাবরই রাষ্ট্রের কাছে অবহেলিত-উপেক্ষিত। মহান মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী দল আওয়ামী লীগ সরকার মুক্তিযোদ্ধা আলেম-পীর-মাশায়েখদের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠিত করবে বলে দেশের সচেতন আলেম-ওলামা ও মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্মের ওলামায়ে ক্বেরাম প্রত্যাশা করে- জয় বাংলা- জয় বঙ্গবন্ধু।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক ও মুখপাত্র ক্বারী মাওলানা আসাদুজ্জামান, যুগ্ম আহ্বায়ক হাফেজ মাওলানা আনোয়ার হোসেন জুয়েল, মুফতী আলিম বিজয় নগরী, কাজী মাওলানা আবু মুসা ভূইয়া, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুছ, মাওলানা আতাউর রহমান আনসারী, মুফতী আবু সুফিয়ান নঈমী, মাওলানা আব্দুর রহিম, মুফতী ইলিয়াস হোসেন ও সুফী আব্দুল করিম প্রমুখ।