‘আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান করে জনগণকে প্রত্যাখ্যান করেছে বিএনপি’

20


সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্র প্রত্যাখ্যানের মাধ্যমে বিএনপি এদেশের জনগণকে, জনগণের স্বপ্নকে প্রত্যাখ্যান করেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক।

বুধবার (২২ জুন) পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে জাজিরা প্রান্তে সমাবেশস্থল পরিদর্শন এবং জনসভার প্রস্তুতিসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বিকেল চারটায় মাদারীপুরের শিবচরস্থ পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী জনসভাস্থলে আওয়ামী লীগের সঙ্গে যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকদের এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ওই সভায় বিএনপি নেতাদের সমালোচনা করে নানক বলেন, ‘তারা এ দেশের স্বাধীনতাকে মানতে পারেনি, তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্বপ্নের সোনার বাংলা মানতে পারেনি, তাই তারা পদ্মা সেতুকেও মানতে পারছে না। তাই তারা স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্র গ্রহণ করতে পারে না। এই কারণে এই দেশের জনগণ তাদেরকে বার বার প্রত্যাখ্যান করেছে। আগামী নির্বাচনেও জনগণ বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করবে।’

বিদেশ থেকে দেশে আসার টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না উল্লেখ করে নানক বলেন, স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন আগামী ২৫ জুন। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ১০ লাখ মানুষের উপস্থিতি হবে সমাবেশ স্থলে। কিন্তু লক্ষ্য থাকবে ১৫ থেকে ২০ লাখ মানুষের সমাগম করা। ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ আসতে শুরু করেছে। শুধু তাই নয়, বিদেশ থেকে দেশে আসার টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না। কারণ বিদেশে থাকা প্রবাসী ভাইয়েরা দেশে আসতে শুরু করেছেন। স্বপ্নের পদ্মা সেতু দু’চোখে দেখতে চান, তারাও সমাবেশস্থলে যোগ দিতে চান।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের জনগণের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন। ভুলে গেলে চলবে না, এই পদ্মা সেতু তৈরিতে ষড়যন্ত্রকারীরা দেশে-বিদেশে চক্রান্ত করেছে। তাই ২৫ জুন সমাবেশ সফল করার মাধ্যমেই ষড়যন্ত্রের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিতে হবে।

এ সময় দলের আরেক সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান বলেন, তারা বলে ৭৫’ এর হাতিয়ার গর্জে উঠুক আরেকবার। তাদের নেতা দণ্ডিত পলাতক তারেক রহমান একই সুরে কথা বলে। এর মাধ্যমে প্রমাণ হয় বঙ্গবন্ধু খুনের সঙ্গে জিয়াউর রহমান জড়িত।

তিনি বলেন, তারা একুশে ফেব্রুয়ারি মানে না, ১৬ ডিসেম্বর মানে না, কারণ তাদের কোনো আদর্শ নেই। তাই তারা পদ্মা সেতুকেও মানতে পারছে না।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, মির্জা আজম, পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য ইকবাল হোসেন অপু, আনোয়ার হোসেন, শাহাবুদ্দিন ফরাজি, যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ, ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যসহ অন্যান্যরা।

সারাবাংলা/এনআর/একেএম





Source link