আইপিএল আয়োজনের প্রস্তাব দিলো কিউইরা -Deshebideshe

0
78


মুম্বাই, ৬ জুলাই- ভারতের ক্রমবর্ধমান করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় টি-২০ লিগ আইপিএল আয়োজনের প্রস্তাব আগেই দিয়ে রেখেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও শ্রীলঙ্কা। এবার বিলিয়ন ডলারের আইপিএলের ১৩তম মৌসুম আয়োজনের প্রস্তাব দিল নিউজিল্যান্ড।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই এই খবরের সমর্থনে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাকে এভাবে উদ্ধৃত করেছে, ‘এই টুর্নামেন্ট প্রথমত আমরা ভারতেই আয়োজন করতে চাই। কিন্তু যদি দেখা যায় সেটি নিরাপদ হবে না, তাহলে অবশ্যিই আমরা বিদেশে আয়োজনের ব্যাপারটি ভেবে দেখবো। আরব আমিরাত ও শ্রীলঙ্কার পর নিউজিল্যান্ডও আমাদের আইপিএল আয়োজনের প্রস্তাব দিয়েছে।’

‘আমরা সব অংশীজনদের (সম্প্রচারকারী, দল ইত্যাদি) নিয়ে সভায় বসে সিদ্ধান্ত নেবো। খেলোয়াড়দের সুরক্ষা সবকিছুর আগে। এ নিয়ে কোনও আপস নেই’-আরও বলেছেন বিসিসিআইয়ের ওই কর্মকর্তা।

আইপিএল এর আগেও বিদেশের মাটিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভারতে সাধারণ নির্বাচন থাকায় ২০০৯ সালে পুরোটা আইপিএলই হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। একই কারণে ২০১৪ আইপিএল আংশিকভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে আরব আমিরাতে। যদি এবারও বিদেশেই আইপিএল আয়োজিত হয়, সেক্ষেত্রে আরবি আমিরাত এগিয়ে থাকবে। তুলনায় শ্রীলঙ্কায় আয়োজন হবে অর্থসাশ্রয়ী। তবে স্বাস্থ্য সুরক্ষার দিকটি ভেবে দেখলে নিউজিল্যান্ড এগিয়ে থাকে। কারণ দেশটি প্রায় কোভিড-১৯ ভাইরাস মুক্ত। কিউইদের দেশে সমস্যা হলো সময়। কারণ দুই দেশের মধ্যে সময়ের ব্যবধান সাড়ে সাত ঘণ্টা। খেলাটা সেখানে বেলা সাড়ে ১২টায় শুরু হলেও অধিকাংশ অফিসগামী মানুষের পক্ষেই তা দেখা সম্ভব হবে না। তাছাড়া সেখানে অভ্যন্তরীণ ভ্রমণেও অসুবিধা হবে। হ্যামিল্টন ও অকল্যান্ডের মধ্যেই শুধু সড়ক যোগাযোগের ভিত্তিতে ম্যাচ আয়োজিত হতে পারে। অন্য শহর যেমন ওয়েলিংটন, ক্রাইস্টচার্চ, নেপিয়ার বা ডানেডিনে বিমানভ্রমণ ছাড়া ম্যাচ আয়োজন সম্ভব নয়।

তবে মূল কথাটা হলো, আইপিএলের ভবিষ্যৎ এখনও পরিষ্কার নয়। আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় নির্ধারিত টি-২০ বিশ্বকাপ বাতিল না হলে এ বছর এটি আয়োজন করতে পারবে না বিসিসিআই। তারা তাই তাকিয়ে আছে আইসিসির সিদ্ধান্তের দিকে, কখন টি-২০ বিশ্বকাপ বাতিলের ঘোষণা দেয় ক্রিকেটের আন্তর্জাতিক সংস্থা। প্রায় সবাই ধরে নিয়েছে ক্রিকেট বিশ্বে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে না আসায় আইসিসি বৈশ্বিক টুর্নামেন্টটি বাতিলই করবে। কিন্তু আইসিসি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেওয়ার ক্ষেত্রে শুধু সময় নিচ্ছে। গত দুটি সভায় আইসিসি সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য একমাস একমাস করে সময় বাড়িয়েছে।

এরইমধ্যে ২০২০ ক্রিকেট মৌসুমের পরিকল্পনা সাজাতে শুরু করেছে বিসিসিআই। জানা গেছে আইপিএলের সূচি এবং সেটির টাইটেল চীনা টাইটেল স্পনসরের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে শিগগিরই আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সভা হবে।

লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চীন-ভারত মুখোমুখি সংঘর্ষে ভারতে চীন বিরোধী মনোভাব বিরাজ করছে প্রবলভাবে। এরই পটভূমিতে চীনা মোবাইল ফোন কোম্পানি ভিভোর সঙ্গে টাইটেল স্পনসরশিপ চুক্তি বাতিলের দাবি উঠেছে। কিন্তু ভিভোর সঙ্গে আইপিএলের চুক্তিটি খুব আকর্ষণীয়, বার্ষিক ৪৪০ কোটি রুপি দিচ্ছে তারা পাঁচ বছরে জন্য। 

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন 

আর/০৮:১৪/৬ জুলাই





Source link

মতামত

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে