অস্ট্রেলিয়ানদের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা উঠছে নভেম্বরে

82


আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৮ মাস বন্ধ রাখার পর করোনা ভ্যাকসিন পাওয়া অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক এবং তাদের স্বজনদের জন্য আসছে নভেম্বরে আন্তর্জাতিক সীমান্ত খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সরকার। খবর বিবিসি।

এর আগে, ২০২০ সালের মার্চ মাস থেকে অস্ট্রেলিয়ায় ঢোকা এবং বের হওয়ার ক্ষেত্রে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছিল। এমনকি বৈধ নাগরিকদেরও দেশের বাইরে যাওয়ার সু্যোগ দেওয়া হয়নি।

যদিও করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় অজি সরকারের এমন পদক্ষেপ বিশ্বব্যাপী প্রশংসা কুড়িয়েছে। তা সত্ত্বেও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ব্যাপারে সরকারের কঠোর অবস্থান একই পরিবারের অনেক সদস্যকে আলাদা থাকতে বাধ্য করেছে।

এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেছেন, অস্ট্রেলিয়ানদের স্বাভাবিক জীবন ফিরিয়ে দেওয়ার এটাই সঠিক সময়।

শুক্রবার (১ অক্টোবর) অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী সংবাদমাধ্যমকে জানান, যেসব রাজ্যের অন্তত ৮০ শতাংশ অধিবাসী করোনা ভ্যাকসিনের আওতায় এসেছেন সেসব রাজ্য ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার আওতায় আসবে।

তবে, বিদেশিদের পর্যটকরা এখনই অস্ট্রেলিয়ায় ঢোকার অনুমতি পাচ্ছেন না উল্লেখ করে মরিসন বলেন, সরকার চেষ্টা করছে, যত দ্রুত সম্ভব বিদেশিদের অস্ট্রেলিয়ায় স্বাগত জানান যায় ততই তা অর্থনীতির জন্য লাভজনক হয়।

অন্যদিকে, অস্ট্রেলিয়ায় ঢোকা মাত্র ১৪ দিনের হোটেল কোয়ারেনটাইন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। যার খরচ ধরা হয়েছে তিন হাজার অস্ট্রেলিয়ান ডলার। এর বাইরেও ভ্যাকসিন নেওয়া অস্ট্রেলিয়ার স্থায়ী অধিবাসীদের ক্ষেত্রে সাত দিনের হোম কোয়ারেনটাইনের বাধ্যবাধকতা থাকছে।T

সারাবাংলা/একেএম





Source link