স্বাধীনতার পঁয়তাল্লিশ বছরেও এখনো দেশের রাজনীতিতে গুণগত ও নীতিগত পরিবর্তন আসেনি

বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের ২৬ তম প্রতিষ্ঠবার্ষিকী আলোচনা সভা, সমাবেশ ও র্যালিসহ নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে পালিত হয়েছে। ইসলামী ফ্রন্ট চট্টগ্রাম নগর শাখার উদ্যোগে আজ ২১ ডিসেম্বর বুধবার নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ইসলামী ফ্রন্ট নগর উত্তর সভাপতি আলহাজ্ব নইম উল ইসলাম সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট চেয়ারম্যান আল্লামা এম এ মান্নান। তিনি বলেন, স্বাধীনতার পঁয়তাল্লিশ বছরেও এখনো দেশের রাজনীতিতে গুণগত ও নীতিগত পরিবর্তন আসেনি। জাতীয় নির্বাচন কীভাবে হবে এখনো এই বিষয়ে জাতীয় ঐক্যমত্য প্রতিষ্ঠিত না হওয়া খুবই দুঃখজনক। বিদ্যমান বড় দুই দলই চায় না জাতীয় নির্বাচন প্রভাবমুক্ত ও সুষ্ঠু হোক। কেননা ওরা যে যখন ক্ষমতায় থাকে জাতীয় নির্বাচনকে প্রভাবিত করে আবারও বিজয়ী হয়ে আসতে চায়। ইসলামী ফ্রন্ট চেয়ারম্যান আল্লামা এম এ মান্নান বলেন, বড় দুই দলের জনগণের ওপর আস্থা নেই। তাই স্বাধীন শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন গঠনে ওদের আন্তরিকতার ঘাটতি রয়েছে। জাতীয় নির্বাচনকে প্রভাবমুক্ত, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে স্বাধীন শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন চায় বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট। যা ইতিমধ্যে জাতীয় দাবিতে পরিণত হয়েছে। আল্লামা এম এ মান্নান বলেন, সুন্নি মতাদর্শের আলোকে ইনসাফ ভিত্তিক গণমুখী সমাজ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে গণমানুষের মুক্তি নিশ্চিত করতে হবে। নীতিবর্জিত অসাধু রাজনীতির বিপরীতে ইসলামী ফ্রন্ট রাজনৈতিক অঙ্গনে ইতিবাচক ধারা সৃষ্টি করতে চায়। সরকার বদল হলেও নির্বাচন ব্যবস্থা যেন হেরফের না ঘটে এমন নীতিধর্মী রাজনৈতিক ব্যবস্থা চাই আমরা। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে ইসলামী ফ্রন্ট ২৬ বছর ধরে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনের সক্রিয় রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন। স্বাধীনতা বিরোধী ইসলাম বিকৃতকারী সকল কুচক্রীর বিরুদ্ধে ইসলামী ফ্রন্ট সবসময় স্বোচ্চার বলে ইসলামী ফ্রন্ট চেয়ারম্যান মত ব্যক্ত করেন। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সমাবেশে প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব স উ ম আবদুস সামাদ। স্বাগত বক্তব্য দেন ইসলামী ফ্রন্ট নগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা নুরুল ইসলাম জিহাদী। প্রধান বক্তা স উ ম আবদুস সামাদ বলেন, ঘুণে ধরা রাজনীতি দেশের অগ্রগতির পথে বড় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। দুই দলের বিদ্বেষমুখী রেষারেষির রাজনীতির কারণে দেশের প্রত্যাশিত উন্নতি হচ্ছে না। রাজনীতিতে নীতি নৈতিকতা প্রতিষ্ঠা জরুরী বলে তিনি মত ব্যক্ত করেন। মাওলানা নুরুল ইসলাম জিহাদী বলেন, স্বাধীন শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন ছাড়া সুষ্ঠু নির্বাচন অসম্ভব। আমরা রাষ্ট্রপতির সংলাপের সাফল্য কামনা করছি। আশা করি নির্বাচন ঘিরে রাজনৈতিক সংকটের দ্রুত সুরাহা ঘটবে। সভাপতির বক্তব্যে আলহাজ্ব নঈম উল ইসলাম বলেন, দেশ স্বাধীন হয়েছে আজ ৪৫ বছর কেটে গেছে। বিদেশী লুটেরাদের কাছ থেকে আমরা মুক্তি পেয়েছি সত্য কিন্তু স্বদেশী লুটেরা ধণিক শোষক গোষ্ঠীর হাতে আজ আমরা জিম্মি হয়ে পড়েছি। ইসলামী ফ্রন্টের আর্দশিক রাজনৈতিক প্লাটফরমে এসে সুস্থ রাজনীতিকে এগিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

মাওলানা আশরাফ হোসাইন ও মুহাম্মদ শফিউল ইসলাম শফি’র যৌথ সঞ্চালনায় সমাবেশে অতিথি ও আলোচক ছিলেন পীরজাদা মাওলানা মুহাম্বদ গোলামুর রহমান আশরফ শাহ, মাস্টার মুহাম্মদ আবুল হোসাইন, আ ন ম তৈয়ব আলী, মুহাম্মদ ফজলুল করিম তালুকদার, নাসির উদ্দিন মাহমুদ, জসিম উদ্দিন মাহমুদ, মুহাম্মদ এনামুল হক ছিদ্দিকী, মাওলানা করিম উদ্দিন নূরী, মাওলানা আমান উল্লাহ আমান সমরকন্দী, শফিকুল ইসলাম চৌধুরী, গিয়াস উদ্দিন নেজামী, অধ্যক্ষ মোজাম্মেল হক, জসিম উদ্দিন সিদ্দিকী, সৈয়দুল হক সাঈদ কাজেমী, মাওলানা সোহাইল আনসারী, সৈয়দ মুহাম্মদ এনামুল হক, নুুরুল ইসলাম শাকিল, মুহাম্মদ আবদুল করিম সেলিম, আহমদ রেজা রুকু পাঠান, মাওলানা আবুল ফোরকান হাশেমী, সৈয়দ মুহাম্মদ আবু আজম, হাবিবুল মোস্তফা সিদ্দিকী, জি এম শাহদাত হোসাইন মানিক, মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম, মুহাম্মদ আবদুল কাদের রুবেল, মুহাম্মদ রিয়াজ হোসেন, মুহাম্মদ মফিজুর রহমান, মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, ইমরান হোসেন প্রমুখ।

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register