শহরে ফিরছে নগরবাসী

ফারজানা: স্বজনদের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করে ছুটি কাঁটিয়ে কর্মজীবীরা ছুটে আসছেন ব্যস্ততম নগরী ঢাকায়। স্বজন, পরিবার ও প্রকৃতির সংস্পর্শে ঈদ উদযাপন করে উচ্ছ্বাস নিয়ে শহরে ফিরছে নগরবাসী। রবিবার কর্মদিবস থাকলেও গার্মেন্টস শ্রমিক, ব্যবসায়ী ও বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিদের বাসে, ট্রেনে ও লঞ্চে চড়ে ঢাকা ফিরতে দেখা গেছে। রাজধানীর বিভিন্ন টার্মিনালে সকাল থেকেই ছিলো শহরমূখী মানুষের ভীড়। সরকারি অফিস ও ব্যাংক বীমা অফিস খুললেও এখনও শহরে অনেকটা ফাঁকা।

পরিবহন সংশ্লিষ্টরা জানান, বাস, লঞ্চ ও ট্রেনের প্রতিটি ট্রিপে আসন পূর্ণ হয়ে যাত্রী আসছেন। লঞ্চ ও ট্রেনে সিট না পেয়ে অনেকেই ছাদ ও ভেতরে দাঁড়িয়ে কোনোভাবে ঢাকায় আসছেন। বেশিরভাগ বাস, লঞ্চ ও ট্রেন অনেকটা ফাঁকা অবস্থায় ফিরতি যাত্রী বহনের জন্য বিভিন্ন গন্তব্যে চলে যাচ্ছে। চলতি সপ্তাহের পুরোটাই যাত্রীদের চাপ থাকবে। এরপর থেকে যাত্রী চলাচল স্বাভাবিক হবে। ঢাকা নদীবন্দরে কর্মরত (সদরঘাট) বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) যুগ্ম-পরিচালক জয়নাল আবেদীন জানান, দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন গন্তব্য থেকে দুপুর পর্যন্ত ৩৩ টি লঞ্চ ঢাকায় পৌঁছেছে। সদরঘাটে যাত্রী নামিয়ে দিয়েই প্রায় খালি লঞ্চ নিয়ে অনেকে চলে যাচ্ছে ওপ্রান্ত থেকে যাত্রী আনতে।

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্ত্তী জানান, প্রতিটি ট্রেনই যাত্রী ভর্তি নিয়ে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে আসছে। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ২২টি যাত্রীবাহী ট্রেন কমলাপুর স্টেশনে এসেছে, ছেড়ে গেছে ১৩টি। ফিরতি ট্রেনগুলো যাত্রী কম নিয়েই যেতে হচ্ছে। যারা রাজধানীতে ঈদ করেছেন, তাদের একটি অংশবিশেষ করে চট্টগ্রাম ও সিলেটে বেড়াতে যাচ্ছেন। চট্টগ্রাম ও সিলেটগামী আন্তঃনগর ট্রেনগুলোতে কিছুটা যাত্রী হচ্ছে। আজ থেকে নগরমুখী যাত্রীদের ভিড় বাড়বে জানিয়ে তিনি বলেন, যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে স্টেশন চত্বরে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। সতর্কাবস্থায় রয়েছেন আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা।

ঢাকা রেলওয়ে থানার ওসি আবদুল মজিদ জানান, রেলপথে নগরমুখী যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। যাত্রীরা বিভিন্ন ধরনের মালামাল নিয়ে কমলাপুর ও বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশনে নামছেন। বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশনেও আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা সতর্কাবস্থায় রয়েছেন।

রাজধানীর গাবতলী, মহাখালী ও সায়েদবাদ বাস টার্মিনালে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রবিবার ভোর থেকেই সারাদেশ থেকে অসংখ্য গাড়ি যাত্রী নিয়ে ঢাকায় এসেছে। গত তিন-চার দিনের তুলনায় যদিও রবিবার ছিলো কম।

Print Friendly, PDF & Email
 

0 Comments

Leave a Reply

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

%d bloggers like this: