রোনালদোর ডিএনএ চেয়ে পরোয়ানা

ধর্ষণ মামলায় ভালোই বিপাকে পড়েছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। সিআর সেভেনের বিরুদ্ধে ক্যাথরিন মায়োর্গার করা ধর্ষণ মামলা তদন্ত করছে মার্কিন পুলিশ। এ খবর পুরনো। নতুন খবর হলো রোনালদোর ডিএনএ চেয়ে পরোয়ানা জারি করেছে লাস ভেগাসের পুলিশ।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, মায়োর্গার ব্যবহূত পোশাকে ডিএনএ খুজে পেয়েছে তদন্তকারী সংস্থা। এবার তারা রোনালদোর ডিএনএ চায় মায়োর্গার কাছে পাওয়া উপাত্তের সঙ্গে মিলিয়ে দেখতে।

মার্কিন মডেল মায়োর্গার দাবি, ২০০৯ সালে লাস ভেগাসের একটি অ্যাপার্টমেন্টে তাকে নিয়ে যান রোনালদো। তিনি যখন পোশাক বদলাচ্ছিলেন, তখন হঠাৎ পিছন থেকে তাকে জাপটে ধরেন সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ তারকা। পরে তাকে ধর্ষণ করেছিলেন।

শুরুতে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন রোনালদো। তার বিরুদ্ধে যখন মামলা করেছেন মায়োর্গা, তখন অবস্থা বেগতিক দেখে রোনালদোর আইনজীবী জানিয়েছিলেন যা ঘটেছিল তা ছিল কেবল পারস্পরিক সমঝোতার ভিত্তিতে। সেই মামলার তদন্তেই নতুন মোড় নিল মার্কিন পুলিশের পরোয়ানা জারি।

গত সেপ্টেম্বরে নেভাদার আদালতে রোনালদোর বিরুদ্ধে মামলাটি করা হয়। সেখানকার পুলিশ ডিএনএ পরোয়ানা ইতালিয়ান কর্তৃপক্ষকে পাঠিয়েছে। পর্তুগিজ অধিনায়ক এখন জুভেন্টাসের হয়ে খেলছেন। তুরিনে আবাস গেড়েছেন। সেখান থেকে ইতালিয়ান পুলিশকে রোনালদোর ডিএনএ সংগ্রহ করে লাস ভেগাস পুলিশের কাছে পাঠাতে হবে।

রোনালদোর বিরুদ্ধে করা মামলার জল গড়াতে গড়াতে কোথায় গিয়ে ঠেকে সেটা আপাতত সময়ের হাতেই তোলা থাকছে। এই বিতর্কের মাঝেই নতুন করে বিতর্ক উসকে দিয়েছেন সাবেক বান্ধবী জ্যাসমাইন লিন্নার্ড। তিনি রোনালদোকে আখ্যা দিয়েছেন মানসিক বিকারগ্রস্ত ও মিথ্যাবাদী বলে। এখানেই থেমে থাকেননি ইংলিশ মডেল লিন্নার্ড। ধর্ষণের অভিযোগ তোলা মায়োর্গাকে সাহায্য করার কথাও জানিয়েছেন। সেইসঙ্গে রোনালদোর ‘আসল চেহারা’ খোলাসা করা হুমকি দিয়েছেন।

টুইটারে লিন্নার্ড লিখেছেন, ‘সে (রোনালদো) আসলে কেমন সেটা সম্পর্কে কারোই কোনো ধারণা নেই। মানুষ যদি তার আসল চেহারার অর্ধেকটাও জানে, তাহলে আতঙ্কিত হয়ে উঠবে।’

মতামত দিন

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register