breaking news New

রোজার আগেই পেঁয়াজের বাজারে ঝাঁজ

রমজান মাসে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে এরই মধ্যে সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। কিন্তু তার পরও কাজ হয়নি, বরং নিয়ন্ত্রণহীনভাবে বেড়ে চলছে পণ্যের দাম। বিশেষ করে রমজানে বেশি চাহিদা থাকা পেঁয়াজের দাম ইতোমধ্যে সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিপ্রতি ৫ টাকা বেড়েছে।

এ ছাড়া আলুর দাম বাড়ার পাশাপাশি সবজি ও মাংস আগের মতোই চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর পলাশী, হাতিরপুল ও কারওয়ানবাজার ঘুরে এই তথ্য পাওয়া গেছে। গতকাল ঢাকার বাজারগুলোয় প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৩০ টাকা দরে, যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ২৫ টাকা। আর প্রতিকেজি আলু বিক্রি হয়েছে ২০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ১৫ টাকা।

সরকারি হিসাব অনুযায়ী দেশে বর্তমানে পেঁয়াজের চাহিদা প্রায় ২৩ লাখ মেট্রিক টন। তবে ব্যবসায়ীদের দাবি, এই চাহিদা ২৫ থেকে ২৬ লাখ মেট্রিক টন। চাহিদার তুলনায় পেঁয়াজের উৎপাদন কিছুটা কম বিধায় আমাদানি করতে হয়। অথচ ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ২ লাখ ১৬ হাজার হেক্টর জমিতে প্রায় ২১ লাখ ৩০ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ উৎপন্ন হয়েছে। হেক্টরপ্রতি উৎপাদন প্রায় ৯.৭ মেট্রিক টন।

আর ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ২ লাখ ১৭ হাজার হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ উৎপাদন হয়েছে প্রায় ২১ লাখ ৩৭ হাজার মেট্রিক টন। হেক্টরপ্রতি উৎপাদন প্রায় ৯.৮ মেট্রিক টন। অর্থাৎ মাত্র ৪ থেকে ৫ লাখ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি করতে হয়। তার পরও আমদানির জটিলতা দেখিয়েই দাম বাড়ানো হচ্ছে। শ্যামবাজারের পাইকারি ব্যবসায়ী আবুল কালাম বলেন, সরবরাহ কম থাকায় হঠাৎ পেঁয়াজের দাম বেড়েছে।

এ ছাড়া বন্দর ও আমদানিকারকরা দাম বেশি রাখছেন। তাই খাতুনগঞ্জের আড়তদারদের কাছ থেকে বেশি দামে কিনতে হচ্ছে। ফলে এর প্রভাব পাইকারি ও খুচরা বাজারে পড়েছে। তিনি আরও বলেন, নতুন পেঁয়াজ মজুদ কঠিন। তাই বাজারে সরবরাহ বেশি থাকায় অনেক দিন ধরেই এর দাম কম ছিল। এখন সব পেঁয়াজ শুকিয়ে যাওয়ায় মজুদ করতে হচ্ছে। ফলে সামনে আরও দাম বাড়বে।

গত বছর রমজানে কেজিপ্রতি ৬০ টাকা দরেও পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে বলে জানান তিনি। কনজ্যুমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) সভাপতি গোলাম রহমান বলেন, রমজানের সময়ই ব্যবসায়ীদের সব অজুহাত সৃষ্টি হয়। এই সময় আমদানি মূল্য বেশি ও চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কম হওয়াসহ নানা অজুহাতে আড়ত ও পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম বাড়ানো হচ্ছে। এ কারণে খুচরা বাজারেও দাম বেড়েছে।

আলু-পেঁয়াজের দাম বাড়লেও সপ্তাহের ব্যবধানে কিছুটা কমেছে ডিমের দাম। বাজারভেদে ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ৯০-৯৫ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ১০০-১০৫ টাকা। এ ছাড়া আগের মতোই বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে সবজি। কাঁচা পেঁপে, টমেটো, শসা, শিম, বেগুন কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে ৪০-৬০ টাকায়। ব্রয়লার মুরগি আগের সপ্তাহের মতোই কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে ১৬০-১৭৫ টাকায়।

লাল লেয়ার মুরগি কেজিতে ২১০-২২০ টাকা, আর পাকিস্তানি কক বিক্রি হচ্ছে ২৭০-২৮০ টাকায়। অপরিবর্তিত রয়েছে গরু ও খাসির মাংসের দাম। বাজারভেদে প্রতিকেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৫৩০-৫৫০ টাকায়। খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৭৫০-৮৫০ টাকায়।

মতামত দিন

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register