রাষ্ট্রপতিকে উকিল নোটিশে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন

0
149

রাষ্ট্রপতিকে উকিল নোটিশ প্রেরণের মাধ্যমে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে বলে মনে করে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশন।

আজ গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. আবু বকর ছিদ্দিক বলেন, “আমরা গণমাধ্যমে জানতে পারলাম গত বৃহস্পতিবার টেলিকম রিপোর্টার্স নেটওয়ার্ক বাংলাদেশ এর সাথে মতবিনিময় সভায় টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী জানিয়েছেন জিপি মহামান্য রাষ্ট্রপতিকে আরটিট্রেশন করা কেন হবে না? এই মর্মে সিঙ্গাপুরভিত্তিক আইনজীবীর মাধ্যমে উকিল নোটিশ পাঠিয়েছেন। বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক ও বেদনাদায়ক। টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ আইন ২০০১ অনুযায়ী আরবিট্রেশনের কোন সুযোগ না থাকা সত্ত্বেও এ ধরণের আইনি নোটিশ অন্যায়। সেই সাথে এই ধরণের নোটিশ কমিশনকে না দিয়ে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ ব্যক্তিকে দেয়ায় রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে বলে আমরা মনে করি। জিপি এবং বিটিআরসির পাওনা দ্বন্দ্বে মহামান্য হাইকোর্টে বিচারাধীন এবং রায় হওয়ার পরেও এ ধরণের নোটিশে আদালত অবমাননা হয়েছে কি না তাও ভেবে দেখা দরকার। এনওসি নিষেধাজ্ঞার পরেও জিপির কার্যক্রম নিয়ে বেশ কিছু অভিযোগ আমরা করেছিলাম। গ্রাহকদের হয়রানি বন্ধ, কলড্রপ বন্ধে হাইকোর্টে নিষেধাজ্ঞা, দুর্বল নেটওয়ার্ক, নিরবিচ্ছিন্ন সেবাসহ বিভিন্ন অভিযোগ জিপি যেমন নিষ্পত্তি করেনি তেমনি নিয়ন্ত্রক সংস্থা তাদের বিরুদ্ধে আজ পর্যন্ত কার্যকর কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেনি। ফলে জিপির সাথে সাথে নিয়ন্ত্রক সংস্থারও জবাবদিহিতা নিশ্চিত হয়নি। যার পরিণতিতে আজ জিপির এই দাম্ভিক আচরণ। মাননীয় টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নিয়ে মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশনের সুরে যে বক্তব্য দিয়েছেন তাতে আমরা হতাশ হয়েছি। এতে মন্ত্রীর ও সরকারের ক্ষমতা নিয়ে জনমনে প্রশ্নের উদ্রেক হয়েছে। আমরা মনে করি সরকার যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করে কাঁদা ছোরাছুরি বন্ধ করে গ্রাহক সেবা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।”