রাউজানে পৃথক অগ্নিকান্ডে ভষ্মিভুত ৮ বসতঘর ক্ষয়ক্ষতি ২৫ লক্ষটাকা

এম বেলাল উদ্দিন,রাউজান
রাউজানে পৃথক দুটি অগ্নিকান্ডে সম্পূর্ণরূপে ভষ্মিভুত হল ৮ বসতঘর । অগ্নিকান্ডের ঘটনা দুটি ঘটে উপজেলার পাহাড়তলী ইউনিয়নের ঊনসত্তরপাড়ায় ও বাগোয়ান ইউনিয়নের গরীবউল¬াহ পাড়া গ্রামে।
ইউপি সদস্য কামরুল ইসলাম জানান, তার পার্শ্ববর্তী ঊনসত্তরপাড়া গ্রামের ৩ নং ওয়ার্ডের আজিজুল হকের বাশের বেড়ার তৈরি ঘরে মঙ্গলবার ভোর ৩ টার দিকে বৈদ্যুতিক শর্টশার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে আজিজুল হক ও তার ভাই মফিজুল হক চৌকিদার ও মমতাজের বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আগুনের তীব্রতার কারণে গায়ের কাপড় ছাড়া কিছু বের করা সম্ভব হয়নি। রাউজান ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা আসার পূর্বে স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।স্থানীয় ইউপি সদস্য আলহাজ্ব আমির হোসেন ঘটনর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘আমি অগ্নিকান্ড কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছি এতে ঘরে রক্ষিত প্রচুর পরিমান ধান সহ সব মারামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্তরা বর্তমানে খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবন-যাপন করছে। ক্ষতির পরিমান প্রায় ৮ লক্ষাধিক হবে বলে তিনি ধারণা করেন।
এদিকে বাগোয়ান ইউনিয়নের গরীবউল¬াহ পাড়া গ্রামে গত সোমবার বিকাল ৪ টার দিকে আবদুল হকের বাড়িতে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। স্থানীয় বাসিন্দা জনৈক মো. রাজীব ও ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী জনৈক ওমর ফারুক জানান, আবদুল হকের বাড়ি থেকে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিটের কারণে আগুনের সূত্রপাত হয়। বাড়িতে থাকা গ্যাস সিলিন্ডারের কারনে আগুনের তীব্রতা আরো বেড়ে গিয়ে অগ্নিকান্ডে একের পর এক আবদুল হকের ৫ ছেলের বাঁশের বেড়ার বসতঘর সম্পূর্ণ পুড়ে যায়। পুড়ে যাওয়া ঘরের মালিকরা হচ্ছেন, মো. মুছা, খলিল, ইসমাঈল, ইব্রাহিম, ইউছুফ। তাদের মধ্যে প্রবাসী ইসমাঈলের পাসপোর্ট ভিসাও পুড়ে গেছে বলে জানা যায়। কালুরঘাট থেকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মিরা এসে স্থানীয় জনতার সহযোগিতায় এক-দেড়ঘন্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। ক্ষতিগ্রস্থদের বাবা আবদুল হক জানান, আগুনে তার ছেলেদের কিছুই অবশিষ্ট নেই। এতে কমপক্ষে ২৫ লাখ টাকার সম্পদ ক্ষতি হয়েছে।

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register