breaking news New

রাউজানে ‘ঘি’র ব্যাবসা বাবুর্চীদের নিয়ন্ত্রণে!

এম বেলাল উদ্দিন, রাউজান
রাউজানে প্রতিটি বাজারের ‘ঘি’র ব্যাবসা নিয়ন্ত্রণ করে বাবুর্চীরা। অনুসন্ধানে জানাগেছে রাউজানে বৃহত্তম ফকিরহাট সহ প্রতিটি হাট-বাজারে যারা ঘি ব্যাবসা করে থাকেন তা নিয়ন্ত্রন কিংবা সেইল করান অধিকাংশ বাবুর্চীরা। সূত্রমতে বাবুর্চীর পছন্দের ঘি নাহলে অনেক সময় রান্নাবান্না নিয়ে ঝামেলায় পড়তে হয় আয়োজকদের। অভিযোগ রয়েছে রাউজানে কমপক্ষে ৩ শতাধিক বাবুর্চীর সাথে গোপন আথাত রয়েছে ঘি কোম্পানী কিংবা এজেন্টদের সাথে। নিজেদের সূযোগ সুবিধা বিবেচনা করে বাবুর্চীরা ফায়দা হাসিলের জন্য আসল,নকল,ভাল,মন্দ কোয়ালিটি তোয়াক্ষা না করে ইচ্ছা মাফিক ঘি লিখেই দেন। সে সুবাদে বাবুর্চীদের পকেটে অলিখিত টোকেনের শত-শত টাকা ডুকে যায় প্রতিটি ছোট বড় খানা,মেজবানী,বিবাহ,আকিকা সহ ঘি ব্যাবহৃত সকল অনুষ্টান থেকে। জানাগেছে ছোট বড় অনুষ্টানের জন্য বাবুর্চী যে যত ঘি লিখতে পারবে তার তথ কমিশন পৌঁছে যায় তার নামে। প্রতিটি ঘির পাত্রের ভিতরে কোম্পানির পক্ষ থেকে এক/দুই লিখা প¬াষ্টিকের টোকেন ডুকিয়ে দেওয়া হয়। আর ঘি ব্যাবহার করে ১/২ নাম্বারের টোকেন গুলো এজেন্টদার কিংবা ঘি ক্রয় করা মুদি দোকানের সওদাগরকে বুঝিয়ে দিলে ১ দিয়ে ১০০ টাকা আর ২ দিয়ে ২০০ টাকা নগদে প্রাপ্ত হয়ে যান বাবুর্চীরা। এমন অভিযোগ রয়েছে বাবুর্চীরা টোকেন ব্যাবসা করে প্রতিটি খানা মেজবানী থেকে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করলেও অনেকেই ঘির মান সম্পর্কে কিছুই বুজেননা। অনেক বাবুর্চী বলেই দেন ঘি যে কোম্পানিরটা লিখছি সেটি আনবেন, অন্য কোম্পানীর ঘি ভালো না,খাবার বরবাদ হয়ে যাবে। আবার অনেক আয়োজনকারী নিজেই নিজের পছন্দের ঘি নিয়ে আসলে বাবুর্চীর সাথে হৈ চৈ লেগে যায়। রাউজানে অনেক বাবুর্চী আছেন তারা বলে থাকেন আপনার খাবার তৈরীতে যেটি (ঘি) আপনার পছন্দের সেটি আনবেন, আমার দায়িত্ব হচ্ছে কম খরচে ভাল রান্না করে দেওয়া। টোকেন দিয়ে ঘি বাজারজাত করে সাধারন ক্রেতাগনকে ধোকা দিচ্ছেন ঘি কোম্পানীরা। রাউজানে বিভিন্ন কোম্পানীর ঘি বিক্রি হলেও বাবুর্চী কিংবা সাধারন মানুষ জানেনা আসলে কোন কোম্পানীর ঘৃত মান সম্পন্ন কিংবা সাস্থ্য সম্মত। বিএসটি আই সহ প্রশাসনিক নজরদারী করে বাজারে বিক্রিত ঘি পরীক্ষা নিরীক্ষা করা দরকার মনে করেন বিজ্ঞ মহল। রাউজানে যে সব ঘি বিক্রি হচ্ছে সেগুলো কতটুকু মান সম্মত তা আদৌ জানেনা কোন মহল। বিশেষ করে রাজবাড়ী,প্রাণ,ত্রী ষ্টার,অ-৭,পল্লী,ডানোফা,কুকমি,রয়েল সহ অনেক কোম্পানীর ঘি বিক্রি হয়ে থাকে রাউজানে। এগুলো বিক্রিতে যথাযথ মান সম্পন্ন কিনা তা দেখার দাবী সব মহলের। অনেকের প্রশ্ন আমরা সত্যি সত্যি কী ঘি খাচ্ছি, নাকী শরীরের জন্য রোগ কিনে নিচ্ছি। বেজাল ঘির কারনে আবার অনেকেই দুধের চানা হতে নিজে ঘি তৈরী করে ব্যাবহারও করেন বিক্রিও করেন। সব মিলিয়ে রাউজানে টোকেন যুক্ত ও ভেজাল ঘি রোধে ব্যবস্থা গ্রহনে প্রশাসন এগিয়ে আসবেন সে প্রত্যাশা সকলের।

মতামত দিন

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register