মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস এ প্রজন্মকে জানতে হবে জলঢাকায়—- শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ।

 

আবেদ আলী, নীলফামারী প্রতিনিধি:
চট্রগ্রামের উনসত্তর পাড়ায় আটমাসের গর্ভবতী কমলা রানী ও তার পরিবারের তেতাল্লিশ জন সদস্যকে ব্রাশ ফায়ার করে মারা হয়। যখন কমলা রানীর লাশ পাওয়া যায় তখন তার শরীর থেকে আট মাসের শিশুটি ঝুলে বেড়িয়েছিল। তাই আমি যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চাই। হবিগঞ্জের যুদ্ধ শিশু সামসুন্নাহার যখন আদালতে স্বাক্ষ্য দেয় তখন সে বলে, আমার নাম সামসুন্নাহার পিতার নাম অজ্ঞাত। তাই আমি ৭১ এর মানবতা বিরোধীদের বিচার চাই। জয়পুরহাটের কড়াইকাদি গ্রামের কানচিরা মোহন্ত (৯৩) কে যখন নিজ বাসায় টেনে-হেচড়ে জবাই করে হত্যা করে ওই স্বাধীনতা বিরোধীরা, আমি ওই খুনী জল্লাদদের বিচার চাই। রবিবার সকালে নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার চিড়াভিজা গোলনা দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরের উদ্দ্যোগে “নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ইতিহাসকে উদ্বুদ্ধকরণ ও উপাদান সংগ্রহ” ও ভ্রাম্যমাণ মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে এভাবেই শতশত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে কথাগুলো বলেন, আন্তজার্তিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সিনিয়র প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ। স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি খোরশেদ আলমের সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরের প্রোগ্রাম অফিসার রঞ্জন কুমার সিংহ, ভ্রাম্যমাণ যাদুঘর সহকারী নুরন্নবী, ইউপি চেয়ারম্যান কামরুল আলম কবির, প্রধান শিক্ষক আল হাসান জায়েদ নওরোজী প্রমুখ। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ আরো বলেন- স্বাধীনতার চেতনায় দেশকে এগিয়ে নিতে হবে, সঠিক ইতিহাস জানতে হবে। তিনি তার বক্তব্যে বিগত বিএনপি- জামায়াত সরকারের কঠোর সমালোচনা করে বলেন, এরাই মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস থেকে জাতীকে দুরে ঠেলে দিয়েছিল। বিএনপি-জামায়াত সরকারের সময়ে এই ঘৃন্য মানবতা অপরাধীদের জাতীয় সংসদে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। এদের গাড়ীতে লাল-সবুজের পবিত্র পতাকা লাগিয়েছিল তৎকালীন সরকার। এছাড়াও তিনদিনের সফরে এসে তার নিজ এলাকা জলঢাকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধকরন বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন বলে জানান তিনি। #

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register