বাংলাদেশের লক্ষ্য ২৫২

নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে নিউজিল্যান্ডকে ২৫১ রানে আটকে দিয়েছে বাংলাদেশ। সিরিজে ফিরতে বাংলাদেশের প্রয়োজন ২৫২ রান। বোলারদের নৈপূণ্যে জয়ের সম্ভাবনা তৈরী হয়েছে। ব্যাটসম্যানরা দায়িত্ব নিয়ে খেলতে পারলেই নিউজিল্যান্ডের মাটিতে প্রথমবারের মত জয়ের স্বাদ পাবে বাংলাদেশ।

 

নিউজিল্যান্ডের নেলসনের স্যাক্সটন ওভালে দুই দলের লড়াই বৃহস্পতিবার ভোর ৪টায় শুরু হয়। দিনের শুরু থেকেই মাশরাফি বিন মুর্তজার সাফল্য। প্রথমে টস জয় এরপর প্রথম ওভারে উইকেট। নেলসনে ফল হওয়া ৫টি ম্যাচেই হেরেছে আগে ব্যাট করা দল। বাংলাদেশ এখানে একটি ম্যাচ জিতেছে আগে ফিল্ডিং করে। পরিসংখ্যান ও উইকেট দেখে মাশরাফি টসে জিতে স্বাগতিক দলকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায়।

 

স্বাগতিকদের ব্যাটিংয়ে নামিয়ে প্রথম ওভারেই সাফল্য এনে দেন অধিনায়ক। মাশরাফির করা প্রথম ওভারের চতুর্থ বলে এলবিডাব্লিউ’র শিকার হন গাপটিল। তৃতীয় বলেও মাশরাফি এলবিডাব্লিউ’র আবেদন করেছিলেন। কিন্তু আম্পায়ার সাড়া দেননি। মাশরাফি রিভিউ নিলে তা বাংলাদেশের পক্ষে আসেনি। তৃতীয় আম্পায়ার জানান, বলের ইমপ্যাক্ট অফ স্ট্যাম্পের বাইরে ছিল।

 

কিউই শিবিরে পরের আঘাতটি করেন তাসকিন আহমেদ। প্রথম ওয়ানডের মত দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনকে (১৪) সাজঘরে ফেরত পাঠান তাসকিন। তাসকিনের ফুলার লেন্থ বল অন সাইড ফ্লিক করতে গিয়ে মিড অনে সাকিবের হাতে ক্যাচ দেন কিউই অধিনায়ক। এর আগে ১৩ রানে শুভাশিষের হাতে জীবন পান তিনি।

 

১৪তম ওভারে সাকিব স্বাগতিক শিবিরে সবচেয়ে বড় ধাক্কাটি দেন। সাকিবের ঘূর্ণিতে পরাস্ত হন প্রথম ম্যাচের নায়ক টম লাথাম। সাকিবের আর্ম বলে সুইপ করতে চেয়েছিলেন টম লাথাম। কিন্তু সাকিবের ফ্লাইটে বল মিস করেন লাথাম। বল আঘাত করে লাথামের প্যাডে। ক্যারিয়ারের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচে আম্পায়ারিং করতে নামা ক্রিস ব্রাউন সাকিবের আবেদনে আঙুল তুলে দেন। লাথাম রিভিউ নিয়ে বাঁচতে চেয়েছিলেন। কিন্তু দ্বিতীয় জীবন পাননি প্রথম ম্যাচের নায়ক। প্রথম ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান আজ ২২ রানের বেশি করতে পারেনি।

 

স্কোরবোর্ডে হাফসেঞ্চুরির আগেই নিউজিল্যান্ডের ৩ ব্যাটসম্যান সাজঘরে। মাশরাফি তার পরিকল্পনা সফল। চতুর্থ উইকেটে প্রতিরোধ গড়ে তুলেন জেমস নিশাম ও নেইল ব্রুম। ৪৭ থেকে দলের স্কোরকে ৯৮ নিয়ে যান তারা। বিপদজনক হয়ে উঠা জুটি ভাঙেন স্পিনার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। বাঁহাতি ব্যাটসম্যান জেমস নিশাম (২৮) মোসাদ্দেকের বলে এগিয়ে এসে মারতে গিয়ে স্ট্যাম্পড হন। উইকেটের পিছনে ক্যারিয়ারের প্রথম ডিসমিসালের সুযোগ হাতছাড়া করেননি নুরুল হাসান সোহান। ৯ রান যোগ হতেই মাশরাফি আবারও আঘাত করেন। দারুণ এক ইনসুইংয়ে কলিন মানরোকে ৩ রানে বোল্ড করেন নড়াইল এক্সপ্রেস। প্রথম স্পেলে প্রথম ওভারে সাফল্য পাওয়ার পর দ্বিতীয় স্পেলের দ্বিতীয় ওভারে দলকে আনন্দের জোয়ারে ভাসান টাইগার দলপতি।

 

Mash0

 

ষষ্ঠ উইকেটে নেইল ব্রুম ও লুক রনকি স্কোরবোর্ডে ৬৪ রান যোগ করেন। নেইল ব্রুমকে দারুণ সহায়তা করেন উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান রনকি। ব্রুম এ সময়ে হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন। তবে তাসকিনের গতির কাছে ৩৫ রানে হার মানতে হয় লুক রনকিকে। তাসকিনের শর্ট বলে শর্ট মিড উইকেটে তানভীরের হাতে ক্যাচ দেন রনকি। প্রথম ম্যাচেও রনকির উইকেট নিয়েছিলেন তাসকিন।

 

রনকি ফিরে যাওয়ার পর নেইল ব্রুম স্বাগতিকদের ইনিংসকে একাই টেনে নেন। চারে নেমে ইনিংসের শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ডানহাতি এ ব্যাটসম্যান। এ সময়ে ক্যারিয়ারের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরির স্বাদ নেন ব্রুম। ১০৯ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন এ সেঞ্চুরিয়ান। ১০৭ বলে ৮ চার ও ৩ ছক্কায় নিজের ইনিংসটি সাজান ব্রুম।

 

বোলাররা স্বাগতিক শিবিরে দাপট দেখালেও একমাত্র ব্রুম মাথা তুলে দারুণ লড়াই করেন। মাশরাফি ৪৯ রানে নেন ৩ উইকেট। ২টি করে উইকেট নেন সাকিব, তাসকিন এবং ১টি করে উইকেট নেন শুভাশীষ ও মোসাদ্দেক।

 

 

 

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register