বছরের প্রথমদিনে দেশব্যাপী জাতীয় পাঠ্যপুস্তক উৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক : বর্তমান সরকারের অন্যতম অঙ্গীকার হিসেবে এবারো বছরের প্রথম দিনে সারাদেশের শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে বিনামূল্যের পাঠ্যপুস্তক। আগামীকাল সোমবার ১ জানুয়ারি সারাদেশে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পালিত হবে ‘পাঠ্যপুস্তক উৎসব’।

এদিন ২০১৮ শিক্ষাবর্ষের প্রাক-প্রাথমিক থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত সব শিক্ষার্থীর হাতে বিনামূল্যের এ পাঠ্যপুস্তক তুলে দেওয়া হবে। এর আগে শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বাসভবন গণভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দিয়ে এ পাঠ্যপুস্তক বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এ বছর বিভিন্ন স্তরের ৪ কোটি ৩৭ লাখ ৬ হাজার ৮৯৫ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ৩৫ কোটি ৪২ লাখ ৯০ হাজার ১৬২ কপি পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ আগামীকাল সকাল সাড়ে ১০টায় আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে দেশব্যাপী পাঠ্যপুস্তক উৎসবের কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন। একই সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে বই বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার। এছাড়া রাজধানীর কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠানের পাশাপাশি দেশের মাধ্যমিক স্তরের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ উৎসব পালিত হবে। বিভাগ, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উৎসবে উপস্থিত থাকবেন।

ন্যাশনাল কারিকুলাম অ্যান্ড টেক্সট বুক বোর্ড (এনসিটিবি) সূত্র জানায়, এরই মধ্যে সারাদেশে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পাঠ্যপুস্তক উৎসব পালনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। ২০১৮ শিক্ষাবর্ষের শুরুতে প্রাক-প্রাথমিক, প্রাথমিক, ইবতেদায়ি, দাখিল, এসএসসি ভোকেশনাল, কারিগরি ও মাধ্যমিক স্তরের ৪ কোটি ৩৭ লাখ ৬ হাজার ৮৯৫ জন শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণের লক্ষ্যে ৩৫ কোটি ৪২ লাখ ৯০ হাজার ১৬২ কপি পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ, বাঁধাই করে জেলা-উপজেলায় পাঠানো হয়েছে। এছাড়া এবার দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ৯৬৩ জন শিক্ষার্থীর জন্য ব্রেইল পদ্ধতির ৮ হাজার ৪০৫ কপি পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হবে।

২০১৮ শিক্ষাবর্ষে প্রথমবারের মতো প্রাথমিক স্তরের ১ম শ্রেণির ৫টি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জন্য (চাকমা, মারমা, গারো, সাদরি ও ত্রিপুরা) ২৫ হাজার ৩৫৭ জন্য শিক্ষার্থীর মাঝে ৭৯ হাজার ৯৯২ কপি পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হবে। এছাড়াও প্রাক-প্রাথমিক স্তরে ৩২ হাজার ৯৪৯ শিক্ষার্থীর জন্য ৬৯ হাজার ২৮৪ কপি মাতৃভাষায় রচিত পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ করা হয়েছে।

২০১৭ সালের মাধ্যমিক পর্যায়ের ৫৬টি পাঠ্যপুস্তকের জন্য প্রায় ৪৬ লাখ শিক্ষক শিক্ষা কার্যক্রম নির্দেশিকা প্রতিটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদ্রাসায় ২ সেট করে বিনামূল্যে সরবরাহ করা হয়। ২০১৮ সালে অবশিষ্ট ১৫টি বিষয়ের নির্দেশিকা সরবরাহ করা হয়েছে।

এদিকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, এবার প্রাথমিক স্তরে দুই কোটি ৪৯ লাখ ৮৩ হাজার ৯৯৩ শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যের পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email
 

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

%d bloggers like this: