ফেসবুকে লেখালেখি, ‘শিবির’ সন্দেহে চবি ছাত্রকে মারধর

0
180
cu

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে লেখালেখির কারণে ছাত্রশিবির নেতা সন্দেহে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক ছাত্রকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে।

মারধরের শিকার মোহাম্মদ ইমরান ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র। এ সময় তার সঙ্গে থাকা মালেক নামে তার এক বন্ধুকেও মারধর করা হয়।

গতকাল বুধবার দুপুর ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের দ্বিতীয় তলায় ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ফেসবুকে লেখালেখির জেরে শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী ইমরানকে শিবির আখ্যা দিয়ে মারধর শুরু করেন। এ সময় তার এক বন্ধু এগিয়ে এলে তাকেও মারধর করেন তারা। বিষয়টি টের পেয়ে বিভাগের শিক্ষকরা প্রক্টরিয়াল বডিকে জানালে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে প্রক্টর অফিসে নিয়ে যান। পরে তাদের হাটহাজারী থানায় হস্তান্তর করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মৌখিক পরীক্ষা দিয়ে বের হওয়ার পর কয়েকজন এসে ইমরানকে মারধর শুরু করেন। এ সময় অন্যান্য শিক্ষার্থীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়লে কিছুক্ষণের জন্য ভাইভা বন্ধ হয়ে যায়।

এ বিষয়ে ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. সাহিদুর রহমান বলেন, ‘সামান্য সময়ের জন্য ভাইভা স্থগিত হয়েছিল। একই সময়ে লাঞ্চের বিরতি থাকায় তেমন প্রভাব পড়েনি। এখন সবকিছু স্বাভাবিক আছে।’

শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপু বলেন, ‘শুনেছি তারা শিবিরের নেতা এবং একজনের বিরুদ্ধে চকবাজার থানায় রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা রয়েছে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর এসএম মনিরুল হাসান বলেন, ‘এমবিএ কোর্সের ভাইভা চলাকালে এক শিক্ষার্থীকে বেশ কয়েকজন মারতে উদ্যত হয়। এ সময় শিক্ষকরা তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করে এবং প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে। তার বিরুদ্ধে ছাত্রদের একটি অংশ শিবির সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ দিয়েছে। কিন্তু সে শিবির কর্মী কি না এমনটি আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি। পরে তার এক বন্ধুকেও আমরা হেফাজতে নিই।’