পাঠ্যবইয়ে ভুল: এনসিটিবির আরও ৪ কর্মকর্তা বদলি

জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) আরও চার কর্মকর্তাকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষাস্তরের বিনামূল্যের পাঠ্যবইয়ে ভুলের জন্য দায়ী করে বদলি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

৫ এপ্রিল বুধবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করে তাদের বদলির কথা জানানো হয়।

এনসিটিবি’র সদস্য (প্রাথমিক শিক্ষাক্রম উইং) ড. মো. আব্দুল মান্নানকে ঝিনাইদহের সরকারি কে. সি. কলেজের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক, এনসিটিবি সম্পাদক গৌরাঙ্গ লাল সরকারকে নোয়াখালীর হাতিয়া দ্বীপ সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক, এনসিটিবি বিশেষজ্ঞ মো. মোসলে উদ্দিন সরকারকে পটুয়াখালী সরকারি মহিলা কলেজে ইতিহাসের সহযোগী অধ্যাপক এবং এনসিটিবি বিশেষজ্ঞ মো. হান্নান মিঞাকে ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ সরকারি কলেজের বাংলার সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে বদলি করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, তারা ৬ এপ্রিলের মধ্যে অবমুক্ত হবেন, অন্যথায় একই তারিখের অপরাহ্নে তাৎক্ষণিকভাবে অবমুক্ত বলে গণ্য হবেন।

এর আগে, ৪ এপ্রিল মঙ্গলবার এনসিটিবর দুই কর্মকর্তাকে বদলি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে এনসিটিবি’র সচিব ইমরুল হাসানকে ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ সরকারি কলেজে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে বদলি করা হয়েছে ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক নিজামুল করিমকে তার স্থলাভিষিক্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া এনসিটিবি’র গবেষণা কর্মকর্তা রেবেকা সুলতানাকে রাজধানীর সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে বদলি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

বইয়ে ভুলের ঘটনায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব রুহী রহমানকে প্রধান করে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়। কয়েক দফা সময় বৃদ্ধির পর দায়ী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি প্রতিবেদন জমা দেয় এই কমিটি।

ভুলের জন্য দায়ী এনসিটিবি’র প্রধান সম্পাদক প্রীতিশ কুমার সরকার ও বিশেষজ্ঞ লানা হুমায়রা খানকে ইতোমধ্যে ওএসডি করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
 

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

%d bloggers like this: