ন্যাশনাল কিন্ডারগার্টেন প্রাইমারি স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় শতভাগ জিপিএ-৫

ষ্টাফ রিপোর্টার: প্রাইমারি স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় যেখানে শতভাগ পাসের তালিকায় এখনও হাতেগোনা কিছু বিদ্যালয়, সেখানে কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার সেরকান্দীতে অবস্থিত ন্যাশনাল কিন্ডারগার্টেন বিদ্যালয়ের টার্গেট শতভাগ জিপিএ ৫ অর্জন!

এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রাইমারি স্কুল সার্টিফিকেট (পিএসসি)তে ইতিমধ্যে শতভাগ পাসের সাফল্য দেখিয়েছে। এখন শতভাগ জিপিএ ৫ নিশ্চিত করতে চায় বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এবারের পিএসসি পরীক্ষায় এই টার্গেট পূরণ হয়ছে। ধারাবাহিক এমন ফলাফলই বলে দেয় ন্যাশনাল কিন্ডারগার্টেন বিদ্যালয়টি সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে অন্যতম। এখানে সন্তানকে ভর্তি করাতে পারলে যে কোনো অভিভাবক নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করেন। কারণ, এখানে ভর্তি করানো মানেই তার সন্তানের ভালো ফলাফল নিশ্চিত করা।

শিক্ষার্থীদের সুশৃঙ্খল জীবন ব্যবস্থা ও উন্নত লেখাপড়ার কারণে প্রতি বছর পাবলিক পরীক্ষায় এমন সাফল্য দেখাচ্ছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি। বিদ্যালয়ের ভেতর শিক্ষার্থীদের সুযোগ-সুবিধার কোনো কমতি নেই। বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কেএমআর শাহীন বলেন, ডে ও মর্নিং শিফট মিলিয়ে প্রায় ২০০শিক্ষার্থী থাকলেও ২০০ শিক্ষার্থীকে নিয়ে সেমিনার করার মতো একটি হল নেই। তবে এগুলো শিক্ষার্থীদের জন্য তেমন সমস্যা নয়। কারণ, এগুলো বিকল্প ব্যবস্থায় সমাধান করা হচ্ছে। পাবলিক পরীক্ষায় এই স্কুলের শিক্ষার্থীদের সামগ্রিক ফলাফলে বেশ খুশি কেএমআর শাহীন।

এ প্রসঙ্গে তিনি বিডিনিউজটাইমসকে বলেন, ‘এই স্কুলে নিয়ম-শৃংখলার ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়। অভিজ্ঞ শিক্ষকদের দিক নির্দেশনা, শিক্ষার্থীদের কঠোর অনুশীলন ও অভিভাবকদের সচেতনতাই ধারাবাহিক সাফল্যের মূল রহস্য। বেশ কয়েক বছর ধরেই আমরা শতভাগ পাশের রেকর্ড করে আসছি। এবারের পিএসসিতে শতভাগ জিপিএ-৫ পাওয়ার গৌরব অর্জন করেছি। তিনি আরো বলেন, ‘শতভাগ পাসের হারের রেকর্ড ধরে রেখে এখন আমাদের টার্গেট শতভাগ জিপিএ-৫ নিশ্চিত করা। ওই টার্গেটেই এগুচ্ছি এখন আমরা।’

২০০৩ সালে কেএমআর শাহীন নিজেই এই স্কুলটি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই ভালো ফলাফলের নজির রেখে আসছে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শিক্ষার আলো ছড়িয়ে যাচ্ছে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

 

Print Friendly, PDF & Email
 

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

%d bloggers like this: