‘নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে বিশ্বে ষষ্ঠ বাংলাদেশ’

সংসদ প্রতিবেদক :

রাজনীতিতে নারীর অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ বিশ্বের ষষ্ঠ স্থানে আছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার জাতীয় সংসদের চতুর্দশ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য কামাল আহমেদ মজুমদারের টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান শেখ হাসিনা।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বেলা ৩টা ২৫ মিনিটে অধিবেশন শুরু হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নারীর উন্নয়ন ছাড়া দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব নয়, এ গভীর উপলব্ধি থেকেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার পর নারী উন্নয়নে পদক্ষেপ নেন। তিনি আমাদের উপহার দেন ’৭২ এর অনন্য সংবিধান। যা কেবল রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক মুক্তির কথাই বলেনি, অত্যন্ত বলিষ্ঠভাবে নারী-পুরুষের সমতাও সমুন্নত করেছে।’

তিনি আরো বলেন,‘জাতির পিতাই প্রথম নারীদের জন্য জাতীয় সংসদে ১৫টি আসন সংরক্ষণ করেন। বাংলাদেশের ইতিহাসে নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে এটাই প্রথম বলিষ্ঠ পদক্ষেপ। যার ফলে স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশের প্রথম সংসদেই নারীরা প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পান।’

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যখনই সরকার গঠন করেছে, দেশের নারী সমাজের উন্নয়নে কাজ করেছে- এ দাবি করে সরকারের বিভিন্ন মেয়াদে নারীর উন্নয়নে গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন বঙ্গবন্ধু কন্যা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমান সরকার নারীর অর্থনৈতিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে কাজ করে যাচ্ছে। এখন মন্ত্রণালয়গুলোতে জেন্ডার সংবেদনশীল বাজেট প্রণয়ন করা হচ্ছে। জাতীয় সংসদের স্পিকার, মন্ত্রী, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি, সিনিয়র সচিব/সচিব, ব্যাংকিং সেক্টরে উচ্চপদ, রাষ্ট্রদূত, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি, প্রোভিসি, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার এবং নির্বাচন কমিশনার হিসেবে আমরা নারীদের নিয়োগ দিয়েছি। সব মন্ত্রণালয়ে নারী উন্নয়ন সংক্রান্ত ফোকাল পয়েন্ট নির্ধারণ করা হয়েছে।’

নারীর ক্ষমতায়নে সরকারের ভবিষ্যত পরিকল্পনা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নারীর ক্ষমতায়ন ও লিঙ্গসমতার জন্য সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় চারটি বিষয়কে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এগুলো হলো- নারীর সামর্থ্য উন্নীতকরণ, নারীর অর্থনৈতিক প্রাপ্তি বৃদ্ধিকরণ, নারীর মত প্রকাশ ও মত প্রকাশের মাধ্যম সম্প্রসারণ এবং নারীর উন্নয়নে একটি সক্রিয় পরিবেশ সৃষ্টি।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘জাতিসংঘসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও সংস্থা নারী উন্নয়নে আমাদের ভূয়সী প্রশংসা করছে। বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের গ্লোবাল জেন্ডার গ্যাপ রিপোর্ট ২০১৬ অনুযায়ী ১৪৪টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ৭২তম যা দক্ষিণ এশিয়ার যেকোনো দেশের চেয়ে ভালো অবস্থান নির্দেশ করেছে। রাজনীতিতে নারীর অংশগ্রহণে বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশ ষষ্ঠ স্থানে।’

নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ সরকার এবং সরকার প্রধান হিসেবে বিভিন্ন পুরস্কারপ্রাপ্তির কথা উল্লেখ করে সংসদ নেতা বলেন, ‘অর্জিত সাফল্যে নারীরা আজ সমাজকে আলোকিত করেছে। এই পুরস্কার এ দেশের সব নারীর।’

মতামত দিন

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register