ডিজিটাল সেন্টার পরিচালকদের দাবি যৌক্তিক

রাজস্ব খাতে বেতন ভাতাসহ ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের পরিচালকদের দাবি যৌক্তিক এবং এতে সরকারের আন্তরিক ও সহনশীল হওয়া জরুরী বলে মন্তব্য করেন বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট ফোরাম (বোয়াফ) সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময়।
বুধবার (২৫ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ২১ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া আমরণ অনশনকারীদের জুস পান করিয়ে অনশন ভঙ্গ করে এ-মন্তব্য করেন তিঁনি।
কবীর চৌধুরী তন্ময় বলেন, বঙ্গবন্ধু’র কন্যা শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপকার। শহর থেকে গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনগোষ্ঠির দ্বারপ্রান্তে তথ্য-প্রযুক্তি পৌছে দিতে, প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে জীবনমান উন্নয়নের লক্ষে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আর সে কাজের অংশীদার ডিজিটাল সেন্টার পরিচালক, উদ্যোক্তাসহ আপনারা সকলে।
তিনি আরও বলেন, চাকরি স্থায়ীকরণ ও পুনর্বহাল এবং জাতীয় বেতন স্কেলসহ আপনাদের বিভিন্ন যৌক্তিক দাবির ব্যাপারে সরকার ও সংশ্লীষ্ট মন্ত্রণালয় আলোচনার মাধ্যমে একটি সুন্দর সিদ্ধান্তে পৌছাবে বলে আমার বিশ্বাস।
সংগঠনের সভাপতি মো. হাসিম উদ্দিন কান্না কন্ঠে বলেন, আমরা ভিক্ষা করতে আসেনি, অধিকার নিশ্চিত করার লড়ায়ে প্রয়োজনে মরতেও দ্বিধা করবো না। দীর্ঘদিন বিনা বেতনে সরকারের ডিজিটাল স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে চলেছে ডিজিটাল সেন্টারের পরিচালকেরা। অথচ এখন আমাদের বাদ দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার পদে নিয়োগের জন্য পরিপত্র জারি করা হয়েছে যা অন্যায় এবং শেখ হাসিনার নির্দেশ অমান্যকরণ।
হাসিম আরও বলেন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক সাহেবে আশ্বাসের প্রেক্ষিতে আমাদের সবার প্রিয় বোয়াফ সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময় ভাই-এর হাতে জুস পান করে পরবর্তী কর্মসূচী দেওয়ার আগ পর্যন্ত ২১ জানুয়ারি থেকে চলা আসা আমাদের আমরণ অনশন আপাতত স্থগিত করা হচ্ছে। আমাদের দাবির ব্যাপারে সরকার যদি আন্তরিক না হয়, তাহলে পরবর্তীতে কঠোর থেকে কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলতে বাধ্য হবো।

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register