breaking news New

চট্টগ্রাম পটিয়ায় বৃক্ষ সিন্ডিকেটের রমরমা বাণিজ্য, বনবিভাগ প্রশাসন নীরব

শামীম আল মামুন, পটিয়াঃ পটিয়া উপজেলার বন বিভাগকে মাইনেস করে গত ৩ মাস ধরে সেগুন কাঠসহ বিভিন্ন প্রজাতির পাহাড় থেকে কোটি কোটি টাকার গাছ কেটে উজাড় করে দিয়েছে একটি সিন্ডিকেট দল। এই সিন্ডিকেটটির প্রধান হোতা হলেন কেলিশহর মাঝিরা পাড়া এলাকার নজরুল ইসলাম লেদু, পৌর সদরের নাছির উদ্দিন সওদাগর ও উপজেলা খরনা ইউনিয়নের জাহাঙ্গীর সওদাগর নামে একটি সিন্ডিকেট দলটি। পটিয়া বন বিভাগের বিভিন্ন কর্মকর্তাকে মোটা অংকের টাকা দিয়ে ও পটিয়া থানার পুলিশকে মাইনেস করে পাহাড়ের বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটে ধংস করছে বলে এলকাবাসীর অভিযোগ।

জানা গেছে পটিয়া উপজেলার কেলিশহর ইউনিয়নে মাঝিরা পাড়া ৭নং ওয়ার্ড এলাকার পূর্ব পাশে প্রায় ৪ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে জঙ্গল শীতল ছড়ি দিয়ে সুলতান মিয়ার মাঠ এলাকায় গেলে দেখা যায় এই সিন্ডিকেট দলটি পাহাড়ের সেগুন বাগানসহ বিভিন্ন প্রজাতির পাহাড়ি গাছ কেটে পাহাড় ধংস করে ফেলছে। একটি সেগুন বাগান ক্রয় করার নাম দিয়ে পাহাড়ে সরকারী কোট কোটি টাকার বিভিন্ন প্রজাতির পাহাড়ি গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে বলে এলকাবাসী সূত্রে জানা যায়।

প্রত্যেক্ষদর্শী সূত্রে জানায় গত ৪ মাস আগে এই সিন্ডিকেট দলের মূল হোতা নজরুল ইসলাম লেদু বার্ম্মা থেকে ৩৫-৪০ জন মানুষ এনে পাহাড়ে আস্তানা বানায়। এই বার্ম্মাইয়াদের দিয়ে বিভিন্ন প্রজাতির সেগুন কাঠসহ পাহাড় থেকে প্রতিদিন বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটে পটিয়া, চট্টগ্রাম, ঢাকাসহ বাংলাদেশের বিভিন্নস্থানে গাছগুলি প্রশাসনকে মাইনেজ করে বিভিন্ন ট্রাক ও কার্ভাট ভ্যান করে পাচার করে আসছে। এছাড়া নজরুল ইসলাম লেদুসহ এই সিন্ডিকেট দলটি প্রতি বছর ব্যক্তিগত বাগান ক্রয় করার নাম করে পাহাড়ের বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটে নিয়ে আসে ও পাহাড় ধংস করে আসছে বলে এলাকার সাধারণ মানুসের অভিমত।

এছাড়া এই সিন্ডিকেট দলটি গাছ পাচারের পাশাপাশি রাঙ্গুনিয়া থেকে ঐ বার্ম্মাইয়া লোকদের ব্যবহার করে প্রতিদিন হাজার হাজার টাকার চোলাই মদের ব্যবসা করে বলে এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়।

সরেজমিনে পাহাড়ে গিয়ে দেখা যায় পাহাড় থেকে সেগুন কাঠসহ বিভিন্ন প্রজাতির হাজার হাজার গাছ কেটে নিয়ে যায়। এহাছাড়া প্রশাসনের নজর না পড়ার জন্য এই সিন্ডিকেট দলটি প্রায় ২ হাজারের মত সেগুন গাছের গোড়ার শিকড় উপড়ে ফেলে। আরো দেখা যায় পাহাড়ি পথ দিয়ে সহজভাবে যেন গাছগুলি ট্রাকে বুঝায় করে পরিবহন করা যায় সেজন্য স্কেবেটার দিয়ে পাহাড় কেটে এই সিন্ডিকেট দল প্রায় ৪ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করে। এছাড়া সিন্ডিকেট দলটি গাছ পাচার ও চোলাই মদের ব্যবসায় কেউ বাধা দিলে তাদেরকে মেরে ফেলার বিভিন্ন হুমকি দেয় বলেও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়।

এক কাঠুরিয়া মোঃ লোকমানের সাথে কথা বলে জানা যায় গত ৩ মাস ধরে ৩০/৩৫ জন লোক পাহাড় থেকে সেগুন গাছসহ বিভিন্ন গাছ কেটে ধ্বংস করে ফেলছে। পাহাড়ি গাছগুলি প্রতিদিন রাতে ও ভোরে ১০-১২টি ট্রাকে করে নিয়ে যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তির সাথে কথা বলে জানা যায় বন বিভাগের বিভিন্ন কর্মকর্তাকে মোটা অংকের টাকা দিয়ে ও পটিয়া থানার পুলিশকে মাইনেস করে পাহাড়ের বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটে ধবংস করছে এই সিন্ডিকেট দলটি।

পটিয়া বন বিভাগের কমকর্তা মোঃ শফিকুল ইসলাম জানান মোঃ লেদু একজন খারাপ প্রকৃতির লোক। তাহার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিব। এছাড়া তিনি এই সিন্ডিকেট দলকে ধরতে এলাকাবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন। তবে টাকার বিষয় তিনি কিছু বলতে রাজি হয় নি।

পরিবেশ বিশেজ্ঞরা জানান এইভাবে সেগুন কাঠসহ বিভিন্ন প্রজাতির গাছ পাহাড় থেকে কেটে ফেললে ভূমিকম্পসহ পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হয়ে গিয়ে বড় ধরণের প্রাকৃতিক বিপযর্য় হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। তাই বনকে রক্ষা করার জন্য সবাইকে স্বোচ্ছার হতে হবে। তা না হলে অল্প সময়ের মধ্যে প্রাকৃতিক বিপর্যয় দেখা দিবে।

মতামত দিন

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register