breaking news New

চট্টগ্রামে সর্বপ্রথম বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটিতে জেবিআরএটিআরসি রোবটিক্স কর্মশালা অনুষ্টিত

রাজিব শর্মা, চট্টগ্রাম অফিসঃ
বাংলাদেশের স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্টান বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের (বিজিসিটিইউবি) কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের রোবটিকস ক্লাবের উদ্যোগে জাপান-বাংলাদেশ রোবটিকস অ্যান্ড অ্যাডভান্স টেকনোলজি রিসার্চ সেন্টারের (জেবিআরএটিআরসি) সহযোগিতায় আইওটি, কোয়াডকপ্টার অ্যান্ড রোবটিক্স শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয়ের সেমিনার কক্ষে এ কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হয়।

কর্মশালায় কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সহযোগী অধ্যাপক নুরুল আবছারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সরোজ কান্তি সিংহ হাজারী। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. শাহাদাত হোসাইন।

বক্তাদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক আ.ন.ম. ইউসুফ চৌধুরী, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক ড. নারায়ণ বৈদ্য, রেজিস্ট্রার এএফএম আখতারুজ্জামান কায়সার, ডেপুটি রেজিস্ট্রার সালাহউদ্দিন শাহরিয়ার, ডেপুটি কন্ট্রোলার মাকসুদুর রহমান চৌধুরী ও সহকারী রেজিস্ট্রার অজয় মজুমদার।

কর্মশালায় রিসোর্স পার্সন হিসাবে সেশন নিয়েছেন- জাপান-বাংলাদেশ রোবটিকস অ্যান্ড অ্যাডভান্স টেকনোলজি রিসার্চ সেন্টার (জেবিআরএটিআরসি) এর চেয়ারম্যান ও প্রতিষ্ঠাতা ইঞ্জিনিয়ার ফারহান ফেরদৌস, জেবিআরএটিআরসি এর অ্যাডভাইজর ও ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির ইইই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ফকির মাশুক আলমগীর এবং জেবিআরএটিআরসির টেকনিক্যাল ডিরেক্টর ও রোবো টেক ভেলি এর সিইও এ.এস.এম আহসানুল এস আকিব।

সিএসই বিভাগের শিক্ষক শুভাশীষ ঘোষের উপস্থাপনায় কর্মশালায় আরও উপস্থিত ছিলেন- বিজিসিটিইউবি রোবটিক্স ক্লাবের প্রেসিডেন্ট ও সিএসই বিভাগের প্রভাষক অভিজিৎ পাঠক, ক্লাবের সদস্য ও সিএসই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ফেরদৌস আরা, প্রভাষক নাজমুন নাহার সহ বিভাগের অন্যান্য শিক্ষক শিক্ষিকাবৃন্দ।

কর্মশালায় প্রধান অতিথি অধ্যাপক ড. সরোজ কান্তি সিংহ হাজারীর বক্তব্যে বলেন, পৃথিবী এখন প্রযুক্তি নির্ভর। শিক্ষার সঙ্গে প্রযুক্তির মেলবন্ধনের মাধ্যমে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। যে দেশ প্রযুক্তিগত ভাবে এগিয়ে থাকবে ঐ দেশ অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ হবে। যুগের প্রয়োজনে রোবটই মানুষের সাথে সাথে বিভিন্ন কাজ করবে যা বর্তমান বিশ্বে অনেক উন্নত দেশে শুরু হয়েছে। তাই আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের ও এই বিষয়ে মেধার বিকাশ ঘটাতে হবে। তার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ছাত্র-ছাত্রীদের সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে।

কর্মশালায় বক্তারা বলেন, বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ শহর থেকে দূরে গ্রামীণ এলাকায় শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিচ্ছে। অনেক চ্যালেঞ্জ নিয়ে শিক্ষায় ও গবেষণায় এগিয়ে যাচ্ছে। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে শিক্ষার্থীদের দক্ষ করে তুলছে। রোবটিক্স টেকনোলজিতেও শিক্ষার্থীদের পারদর্শী করতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিচ্ছে। চট্টগ্রামে প্রথম বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটিতে জেবিআরএটিআরসি রোবটিক্স কর্মশালা করছে।

৪র্থ শিল্প বিপ্লবে শিল্পকারখানায় কমদামে জিনিস উৎপাদন করতে হলে, প্রোডাকশন বাড়াতে হলে উৎপাদন প্রক্রিয়াকে অটোমেশন করতে হবে। সার্ভিস গুলো অটোমেট করতে হবে। এ ক্ষেত্রে রোবটিকস প্রয়োজন। এছাড়াও রোবটিক্স প্রযুক্তি এমন একটি প্রযুক্তি যা আজ বিজ্ঞান গবেষণা, চিকিৎসা, মহাকাশ এবং শিল্প সেক্টরে ব্যবহারের মাধ্যমে বিশ্বকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। আগামী শতাব্দী হবে অনেকটা রোবট নির্ভর। বিশ্বের সঙ্গে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য আমরা চেষ্টা করছি। তাই রোবট তৈরির ক্ষেত্রে এবং তা যাতে বাণিজ্যিকভাবে তৈরির সফলতা আমরা অর্জন করতে পারি সেটাই আমরা আমাদের কর্মশালায় কম্পিউটার বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের মাঝে উপস্থাপনের চেষ্টা করছি। যাতে তারা প্রযুক্তির উৎকর্ষতার সাথে সাথে নিজেকে একজন উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তুলতে পারে। রোবটিকসে নতুন উদ্ভাবনী উদ্যোগ নিতে পারবে।

বক্তারা এই কর্মশালার সকল উদ্যোক্তাদের, বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি, সিএসই বিভাগ, রোবটিক্স ক্লাব ও জেবিআরএটিআরসিকে ধন্যবাদ দেন। তারা আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, এ ধরনের প্রোগ্রাম থেকে শিক্ষার্থীরা রোবটিকস বিষয়ে অনেক কিছু শিখতে পারবে।

এ কর্মশালায় একটি বাংলায় কথা বলা রোবট ডিসপ্লে, ডেমোনস্ট্রেশন সহ রোবটিক্স সংক্রান্ত সকল বিষয় সম্পর্কে অংশগ্রহণকারীদের বৃহৎ ধারণা দেওয়া হয়েছে। কর্মশালা শেষে প্রশ্নোত্তর পর্বে শিক্ষার্থীরা রিসোর্স প্যানেলকে বিভিন্ন প্রশ্ন করে তাদের অজানা বিষয় গুলো জেনে নিয়েছে।

এছাড়া প্রোগ্রামে বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটির পৃষ্ঠপোষকতায় বিজিসিটিইউবি রোবটিকস ক্লাবের শিক্ষার্থীদের তৈরিকৃত প্রজেক্ট চট্টগ্রামে প্রথম পরিবেশ বান্ধব স্মার্ট ডাস্টবিনের উদ্বোধন করেন বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সরোজ কান্তি সিংহ হাজারী। স্মার্ট ডাস্টবিন প্রজেক্টটি তৈরিতে অংশগ্রহণ করেছিলেন বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটির সিএসই বিভাগের শিক্ষার্থী মো.জিয়াদ হোসাইন, ইমতিয়াজ হোসাইন, হোসাইন বিন শহীদ ও আকিব উদ্দীন নয়ন।

উক্ত কর্মশালায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। কর্মশালা শেষে তাদের সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

মতামত দিন

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register