খুলনায় শুরু হচ্ছে তিন দিনের জেলা ইজতেমা

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা :

আগামী বৃহস্পতিবার বাদ আছর আম বয়ানের মধ্য দিয়ে খুলনায় তিন দিনের জেলা ইজতেমা শুরু হচ্ছে।

ইতিমধ্যেই সার্বিক প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। দক্ষিণাঞ্চলের ১০ উপজেলার মুসল্লিরা ইজতেমায় অংশ নেবেন। কয়েকশ স্বেচ্ছাসেবক জামায়াতের বিভিন্ন স্তরের প্রস্তুতি কার্যক্রমে অংশ নিয়েছে।

ইজতেমা কমিটির সূত্রে জানা গেছে, জেলার কয়রা, পাইকগাছা, দাকোপ, বটিয়াঘাটা, ডুমুরিয়া, ফুলতলা, তেরখাদা, দিঘলিয়া, রূপসা ও বাগেরহাট জেলার মোংলা উপজেলার মুসল্লিরা জামায়াতে অংশ নেবেন। বিদেশি ১৫টি জামায়াতের ২০০ জন ধর্মপ্রাণ মুসলমান অংশ নেবেন।

দেশগুলো হচ্ছে সৌদি আরব, মরক্কো, সুদান, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, কাতার, দক্ষিণ আফ্রিকা ইত্যাদি। ইজতেমার কাছে কওমী মাদ্রাসা কমপ্লেক্স ও লিল্লাহ বোডিং এ বিদেশিদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ইজতেমার প্রতিনিধি ইকবাল কবির বুলু জানান, খাবার পানি ও ওজুর জন্য জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর ৩২টি ট্যাংক সরবরাহ করেছে। পাইপ লাইনের মাধ্যমে ওয়াসা প্রয়োজনীয় পানি সরবরাহ করছে। এ ছাড়াও পাম্পের মাধ্যমে পানি সরবরাহ করা হবে। সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ ব্যবস্থা থাকবে বলে আয়োজকরা আশাবাদী।

মিডিয়া মাইক অ্যান্ড সাউন্ড নামক প্রতিষ্ঠানের মালিক শেখ মারুফ হোসেন জানান, ছয়জন কর্মচারী দিনরাত পরিশ্রম করছে। আশিটির বেশি হর্ন স্থাপন করা হচ্ছে। শনিবার পর্যন্ত মাইক সংযোগ রাখা হবে।

কেএমপির সূত্র জানায়, ইজতেমায় নিরাপত্তার জন্য দুই হাজার পুলিশ মোতায়েন করা হবে। বুধবার থেকে পুলিশ ইজতেমাস্থলে অবস্থান নেবে। সেখানে পুলিশের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। কেএমপি কমিশনার সার্বিক পরিস্থিতি মনিটরিং করছেন।

ইজতেমার প্রাক প্রস্তুতি দেখার জন্য কেএমপি কমিশনার নিবাস চন্দ্র মাঝি, জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান মঙ্গলবার পৃথকভাবে ইজতেমাস্থল পরিদর্শন করেন। ইজতেমায় অংশগ্রহণকারী বিদেশি মুসল্লিরা খুলনায় এসে পৌঁছেছেন।

লবণচরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সরদার মোশাররফ হোসেন জানান, মঙ্গলবার থেকে শনিবার পর্যন্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প থাকবে।

পুলিশ কমিশনার নিবাস চন্দ্র মাঝি বলেন, খুলনায় তাবলিগ জামায়াতের ইজতেমা এই প্রথম। এটি খুলনাবাসীর জন্য একটি গৌরবের বিষয়। এই ইজতেমা শুধু খুলনাবাসীর নয়, মুসলিম বিশ্বের ২৫টি দেশের ১৫টি জামায়াতও অংশ নেবে।

জেলা ইজতেমার সমন্বয়কারী কাজী মো. তারেক জানান, চট টানানো, লাইট স্থাপন, পানি সরবরাহ সবমিলে সোমবার ৩০০ স্বেচ্ছাসেবক দায়িত্ব পালন করেন। কেন্দ্রীয় জামায়াতের ২০/২৫ জন প্রতিনিধি খুলনায় আসবেন। শনিবার জোহরের আগে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে ইজতেমার সমাপ্তি হবে।

মতামত দিন

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register