breaking news New

এবার নির্বাচনে বিজেপির পতন হতে পারেঃ রাজনীতি বিশ্লষকদের মত

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ লোকসভা নির্বাচনে এবার গেরুয়া ঝড় উঠবে না। এমন ইঙ্গিতই মিলছে নানা রাজনৈতিক বিশ্লেষণে। বিশেষজ্ঞরা সংশয় প্রকাশ করেছেন উত্তরপ্রদেশে বিজেপির জয় নিয়ে। গতবার এ রাজ্যেই রেকর্ড সংখ্যক আসন পেয়েছিল দলটি।

তবে দেশের বৃহত্তম এ রাজ্যে গেরুয়া শিবিরের অবস্থা যে বেশ টলমলে, তা আগেই অনুমান করা যাচ্ছে। বিজেপিকে কোণঠাসা করতে মহাজোট গড়েছে আঞ্চলিক প্রধান তিনটি দল সমাজবাদী পার্টি (সপা), বহুজন সমাজ পার্টির (বসপা) ও রাষ্ট্রীয় লোকদল। লোকসভায় আসন সংখ্যার নিরিখে দ্বিতীয় বৃহত্তম রাজ্য মহারাষ্ট্রের নামও সেই তালিকাভুক্ত হল। রয়টার্স জানিয়েছে, কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপি এবং তার জোট সঙ্গী শিবসেনা মহারাষ্ট্রে বড়সড় ধাক্কা খেতে চলেছে।

গ্রামীণ এলাকার দারিদ্র্য-দুর্দশা, বেকারত্ব এবং খরা রোধে গাফিলতিই বিজেপিকে চাপে ফেলেছে। ফলে গ্রাম-ভারতের ভোট এবার মোদি শিবিরের বিরুদ্ধে যাবে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। কারণ দেশের ১৩০ কোটি মানুষের দুই-তৃতীয়াংশই মফস্বল এবং গ্রামের বাসিন্দা। তাই গ্রাম-ভারত মুখ ফেরালে বিজেপিকে পর্যুদস্ত হতেই হবে। মহারাষ্ট্রেও যার ব্যতিক্রম হবে না। বাণিজ্যনগরী মুম্বাইসহ মহারাষ্ট্রের সর্বত্রই বিজেপিবিরোধী হাওয়া চলছে- এমনই অভিমত বিশ্লেষকদের। ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি-শিবসেনা জোট রাজ্যের ৪৮টি আসনের ৪১টিতে জয় পেয়েছিল। কিন্তু এই লোকসভা নির্বাচনে সেই আশা একেবারেই নেই।

গণহারে কৃষক আত্মহত্যা, ফসলের ন্যায্য দাম না পাওয়া ও কৃষকদের আয় কমে যাওয়া যার অন্যতম কারণ। সঙ্গে অবশ্যই বেকারত্ব। মহারাষ্ট্রের মারাঠওয়াড়া বারবার কৃষক আত্মহত্যার ঘটনায় শিরোনামে এসেছে। ঋণ মওকুফের দাবিতে কৃষকরা পথে নেমেছেন। কিন্তু সরকার বরাবরই নীরব। বিদেশ সফরে ব্যস্ত থাকা প্রধানমন্ত্রী অবসরকালে দেশে ফিরলেও কৃষকদের, দেশের দরিদ্র মানুষের দিকে তাকানোর সময় পান না। তাই পালটা জবাব দিতে এবার প্রস্তুত দুর্দশাগ্রস্ত সেসব মানুষ।

পুলওয়ামায় সন্ত্রাসবাদী হামলায় জওয়ানদের মৃত্যু, পাকিস্তানের মাটিতে ভারতের বিমান হানায় সন্ত্রাসবাদী ঘাঁটি ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়ার দাবিতে মোদি এবং তার দোসররা ফের ভোট বাক্স ভরানোর চেষ্টা চালালেও কর্মসংস্থানের ঘাটতি, অনাহার, অপুষ্টির কাছে হার মানতে হবে তাকে, তেমনই মনে করা হচ্ছে।

মুম্বাইয়ের রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ প্রতাপ আসবে বলেন, ‘এসব ঘটনাকে ভিত্তি করে মার্চ মাসেও বিজেপি সামান্য এগিয়ে ছিল বলে মনে হচ্ছিল। কিন্তু গত কয়েক সপ্তাহে বিরোধীরা স্বর চড়িয়েছে বেকারত্ব, শস্যের দাম নিয়ে। যা ভোটারদের মধ্যে প্রভাব ফেলতে শুরু করে দিয়েছে।’

মতামত দিন

0 Comments

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password

Register